ঢাকাশনিবার , ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
  • অন্যান্য
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ভোলার কৃতি সন্তান শাখাওয়াত বাংলাদেশের বেষ্ট হসপিটালেটি এন্ড ট্যুরিজম লিডার হিসাবে স্বীকৃত

নিউজ রুম
ফেব্রুয়ারি ৪, ২০২৩ ৯:৫৫ অপরাহ্ণ । ৭০ জন
Link Copied!
সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

জাকির হোসেন নাহিদ, বিশেষ প্রতিনিধি।।

সম্প্রতি লিডার্স ফোরাম বিডি আয়োজিত লিডারশিপ এক্সিলেন্স সামিট-২০২২ এ “হসপিটালিটি অ্যান্ড ট্যুরিজম লিডারশিপ”ম ক্যাটগরিতে মোঃ শাখাওয়াত হোসেনকে সেরা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে হসপিটালিটি ও ট্যুরিজমের ক্ষেত্রে অসাধারণ ব্যবসায়িক অবদান এবং নেতৃত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি এ পুরস্কার পেয়েছেন।

পুরস্কারটি তাকে তুলে দেয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন ইমার্জিং ক্রেডিট রেটিং লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনকেএ মবিন, এলএফবির প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি খন্দকার কবির, এলএফবি ভাইস-প্রেসিডেন্ট হালিদা হানুম আক্তার, ট্রাস্টি বোর্ড, জুরি বোর্ড এবং এলএফবি উপদেষ্টারা।

এ সময়ে অনুষ্ঠিত ‘স্মার্ট বাংলাদেশের দিকে টেকসই নেতৃত্ব: সমস্যা ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক প্যানেল আলোচনায় কয়েকজন অতিথি বক্তার মধ্যে শাখাওয়াত হোসেনও ছিলেন।

বর্তমানে শাখাওয়াত হোসেন ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টস পিএলসি এর সিইও এবং বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল হোটেল অ্যাসোসিয়েশনের পরিকল্পনা ও উন্নয়নের স্থায়ী কমিটির কো-চেয়ারম্যান।

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এবং ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্টে স্নাতকোত্তর (এমফিল) এবং এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেছেন।

ব্যাংকিং, স্বাস্থ্য, আতিথেয়তা, আরএমজি, রিয়েল এস্টেট, ফিন্যান্স ইত্যাদির মতো বিভিন্ন ক্ষেত্রে নেতৃত্বের দক্ষতার স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য এই শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল। যেখানে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য ১৩ জন নেতাকে পুরস্কৃত করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে দেশের ২৩টি সেক্টরের ২০০ জন নেতা অংশগ্রহণ করেন। নেতারা তাদের কর্মজীবনের অভিজ্ঞতা, স্বপ্ন, মিশন এবং এলএফবি এর দৃষ্টিভঙ্গি সম্পর্কে কথা বলেন।

জাতিসংঘ বিশ্ব পর্যটন সংস্থা (ইউএনডব্লিউটিও) কর্তৃক নির্ধারিত গত বিশ্ব পর্যটন দিবসের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘Rethinking Tourism’ বা ‘পর্যটনে নতুন ভাবনা’ যা পর্যটন শিল্পের তথাকথিত উন্নয়নের ধারা থেকে বের হয়ে নতুন উদ্ভাবনী ধারণা বাস্তবায়নের মাধ্যমে অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধির ওপর গুরুত্বারোপ করা।

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা-২০৩০ বাস্তবায়নের জন্য উন্নত বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও পর্যটনশিল্পের ওপর অধিক গুরুত্ব আরোপ করা প্রয়োজন।

শুধু বিনোদন নয়, পেশাগত কাজেও কম-বেশি সবাইকেই ভ্রমণ করতে হয়। এই ভ্রমণের সময়েই হোটেলে, রেস্টুরেন্টে, রিসোর্টে, মোটেলে সেবা দেওয়ার জন্য দক্ষ জনশক্তির প্রয়োজন। যে দক্ষতা মিলবে ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের মাধ্যমে। ভবিষ্যতে সারা বিশ্বই পর্যটন সেবায় গুরুত্ব দেবে। কেননা প্রতিটি দেশই তাদের নিজস্ব সংস্কৃতি, ইতিহাস, জীবনযাপন ও প্রাকৃতিক নয়নাভিরাম সৌন্দর্য সারা বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে চায়। যার মূল সুর হবে এই পর্যটন খাত। বর্তমানে এ খাতে উন্নয়ন অগ্রযাত্রা সাধিত হচ্ছে ও ভবিষ্যতে এই খাতে বিপুল পরিমাণে দক্ষ জনবলের প্রয়োজন হবে।

 

এই দক্ষ জনবল গড়ে তোলার জন্য টেকসই নেতৃত্বের কোন বিকল্প নেই।

শাখাওয়াত হোসেন তিনি ভোলা জেলার মনপুরা উপজেলার কৃতি সন্তান। তিনি শুধু উদিয়মান শিল্প উদ্যোক্তা হিসেবে নয় বিশেষ করে পর্যটন শিল্পের পরিকল্পিত বিভিন্ন প্রকল্পে নেতৃত্ব প্রদানেও ভূয়শী প্রশংসা অর্জন করেন ও দেশের অর্থনৈনিতক উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় বিশেষ ভূমিকা পালন করেন। তিনি শুধু ভোলার গর্ব নয়; দক্ষিন বাংলাসহ সারাদেশেরই গর্ব। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে বিভিন্ন ক্ষেত্রে এরকম শিল্প উদ্যোক্তার পাশাপাশি টেকসই নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য আরো বেশি নেতৃত্বশীল ব্যক্তিত্ব এগিয়ে আসা প্রয়োজন মনে করেন অর্থনীতিবিদরা।

%d bloggers like this: